Home / BCS Tips / About USA election 2016

About USA election 2016


About USA election 2016

Loading...

চলছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের উত্তাপ তাই বিসিএস সহ বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষা বিশ্ব মোড়ল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে প্রশ্ন আসতে পারে । চলুন এক নজরে দেখে নিই ।
.===========================
ইতালির নাগরিক ক্রিস্টোফার কলম্বাস আমেরিকা আবিষ্কার করেন-১৪৯২ সালে।
আমেরিকার স্বাধীনতা সংগ্রামের নায়ক- জর্জ ওয়াশিংটন (১ম প্রেসিডেন্ট) ।
সংবিধান গৃহীত হয়-১৭ সেপ্টেম্বর, ১৭৮৭।
সংবিধান কার্যকর হয়- ১৭৮৯ সালে।
স্বাধীনতা লাভ করে- যুক্তরাজ্যের কাছ থেকে।
যুক্তরাষ্ট্রে গৃহযুদ্ধ সংঘটিত হয়- ১৮৬১-১৮৬৫ সাল পর্যন্ত।
যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান রচনা করেন- জেমস মেডিসন।
ইলেক্টোরাল কলেজ- যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের নির্বাচকমণ্ডলী।
যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভার নাম-কংগ্রেস।
যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্যের মধ্যে যে দুটি রাজ্য মূল ভূখণ্ডের বাইরে- হাওয়াই ও আলাস্কা।
প্রাথমিকভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গঠিত হয়-১৩টি অঙ্গরাজ্য নিয়ে।
আলাস্কা রাজ্যটি যুক্তরাষ্ট্র ক্রয় করে-রাশিয়ার কাছ থেকে ১৮৬৭ সালে ৭২ লাখ ডলার মূল্যে ।
১৮০৩ সালে যুক্তরাষ্ট্র লুইজিয়ানা রাজ্যটি কিনে নেয়-ফ্রান্স থেকে ।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন ক্রীতদাসদের স্বাধীন নাগরিকের মর্যাদা দান করেন ১৮৬৩ সালের ১ জানুয়ারি।
যুক্তরাষ্ট্রে ক্রীতদাস প্রথা বিলুপ্ত হয়-১৮৬৩ সালে।
মহিলারা ভোটাধিকার লাভ করে-১৯২০ সালে( সংবিধানের ১৯তম সংশোধনীর মাধ্যমে)।
বিশ্বের বৃহত্তম চলচ্চিত্র প্রেক্ষাগৃহ ‘রক্সি’ অবস্থিত- যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে।
ওয়াটার গেট- ওয়াশিংটনের একটি বাণিজ্যিক ভবন ( এখানে ডেমোক্র্যাট দলের রাজনৈতিক অফিস ছিল)।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে স্ট্যাচু অব লিবার্টি উপহার দেয়-ফ্রান্স।
হোয়াইট হাউজের স্থপতি-স্থপতি জেমস হোবান ( আয়ারল্যান্ড)।
বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার রাজনৈতিক দলের নাম- ডেমোক্র্যাট পার্টি (প্রতীক গাধা)। রিপাবলিকান পার্টির প্রতীক হাতি।
যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট- রানিংমেট হিসেবে পরিচিত।
বারাক ওবামা সিনেটর ছিলেন-ইলিয়ন রাজ্যের।
বারাক ওবামার বাবা বারাক ওবামা সিনিয়র –কেনীয় বংশোদ্ভুত।
মার্কিন প্রেসিডেন্টের সহধর্মিনীকে বলা হয়- ফার্স্ট লেডি। বর্তমান ফার্স্ট লেডি-মিশেল ওবামা ।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ ফার্স্ট লেডি- মিশেল ওবামা।
বর্তমান প্রতিরক্ষামন্ত্রী- আ্যসটন কার্টার।
সেক্রেটারি অব স্টেট বলা হয়- পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ।
বর্তমান ও ৬৮তম পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম-জন ফরবেস কেরি(তিনি ম্যাচাচুসেটসের সিনেটর ছিলেন )।
প্রতিরক্ষা বিভাগের সদর দপ্তর-পেন্টাগন(আরলিংটন, ভার্জিনিয়া)।
‘ফেয়ার ফ্যাক্স’ যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি অর্থনৈতিক গোয়েন্দা সংস্থা।
‘ব্ল্যাক ওয়াটার’ যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি নিরাপত্তা সংস্থা।
যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান উৎক্ষেপণকারী সংস্থা-নাসা।
নাসা প্রতিষ্ঠিত হয়-১৯৫৮ সালে।
নাসার সদর দপ্তর-ওয়াশিংটন ডিসি।
শান্তিতে নোবেল পুরস্কারপ্রাপ্ত মার্কিন প্রেসিডেন্টবৃন্দ
.
থিওডর রুজভেল্ট—১৯০৬ সাল
উড্রো উইলসন –১৯১৮ সাল
জিমি কার্টার—২০০২ সালে
বারাক ওবামা —২০০৯ সালে।
.
✎সংখ্যাভিত্তিক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য-
♦ মোট অঙ্গ রাজ্য-৫০টি
♦ প্রেসিডেন্টের মেয়াদকাল- চার বছর।
♦ পতাকায় তারকা ছিন্ন-৫০ টি; পতাকয় প্রথমে তারকা ছিল-১৩ টি।
♦ বারাক ওবামা ৪৪ তম প্রেসিডেন্ট
♦ প্রেসিডেন্ট হতে হলে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের প্রমাণ থাকতে হয়- ১৫ বছরের।
♦ প্রেসিডেন্ট হওয়ার সর্বনিম্ন বয়স-৩৫ বছর।
♦ মোট ইলেক্টোরাল ভোট -৫৩৮ টি।
♦ প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার জন্য ২৭০ টি ইলেক্টোরাল ভোট প্রয়োজন।
♦ সবচেয়ে বেশি ইলেক্টোরাল ভোট ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে ——৫৫টি।
মোট সিনেট সদস্য-১০০ জন।[ প্রতি রাজ্যে ২ জন করে, ৫০ টি রাজ্যে ১০০ জন] ♦ হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভের সদস্য- ৪৩৫ জন।
♦ প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবন ও প্রধান প্রশাসনিক দপ্তরের নাম- হোয়াইট হাউজ।
♦ প্রেসিডেন্টের অফিস যে নামে পরিচিত-ওভাল অফিস।
♦ প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমানের নাম- এয়ারফোর্স ওয়ান।
♦ ১ম প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াশিংটন হোয়াইট হাউজে বসবাস করেননি। হোয়াইট হাউজে বসবাস করেন ২য় প্রেসিডেন্ট জন এডামস।
♦ ১৬তম প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন ক্রীতদাস প্রথা বিলুপ্ত করেন।
♦ ১ম বিশ্বযুদ্ধের সময় প্রেসিডেন্ট ছিলেন উড্রো উইলসন(২৮তম) ।
♦ ২য় বিশ্বযুদ্ধের সময় প্রেসিডেন্ট ছিলেন রুজভেল্ট (৩২তম) ও হ্যারি এস ট্রুম্যান (৩৩ তম)
♦ ৩২তম প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্কলিন ডি রুজভেল্ট(১৯৩২-১৯৪৫) তিন মেয়াদে ক্ষমতায় ছিলেন ১২ বছর।
♦৩৫ তম প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি পুলিৎজার পুরস্কার লাভ করেন।
♦ ৩৭ তম প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সন ‘ওয়াটার গেট’ কেলেঙ্কারীর সাথে জড়িত।
♦রিচার্ড নিক্সন একমাত্র প্রেসিডেন্ট যিনি পদত্যাগ করেছিলেন।
♦ বসনিয়ায় যুদ্ধবিরতি স্বাক্ষরের মধ্যস্থতাকারী ৩৯ তম প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার।
♦ ৪০ তম প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যান হলিউডের অভিনেতা ছিলেন।
♦ প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট- বারাক ওবামা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Share