Home / BCS Tips / About USA election 2016

About USA election 2016

About USA election 2016

চলছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের উত্তাপ তাই বিসিএস সহ বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষা বিশ্ব মোড়ল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে প্রশ্ন আসতে পারে । চলুন এক নজরে দেখে নিই ।
.===========================
ইতালির নাগরিক ক্রিস্টোফার কলম্বাস আমেরিকা আবিষ্কার করেন-১৪৯২ সালে।
আমেরিকার স্বাধীনতা সংগ্রামের নায়ক- জর্জ ওয়াশিংটন (১ম প্রেসিডেন্ট) ।
সংবিধান গৃহীত হয়-১৭ সেপ্টেম্বর, ১৭৮৭।
সংবিধান কার্যকর হয়- ১৭৮৯ সালে।
স্বাধীনতা লাভ করে- যুক্তরাজ্যের কাছ থেকে।
যুক্তরাষ্ট্রে গৃহযুদ্ধ সংঘটিত হয়- ১৮৬১-১৮৬৫ সাল পর্যন্ত।
যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান রচনা করেন- জেমস মেডিসন।
ইলেক্টোরাল কলেজ- যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের নির্বাচকমণ্ডলী।
যুক্তরাষ্ট্রের আইনসভার নাম-কংগ্রেস।
যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্যের মধ্যে যে দুটি রাজ্য মূল ভূখণ্ডের বাইরে- হাওয়াই ও আলাস্কা।
প্রাথমিকভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গঠিত হয়-১৩টি অঙ্গরাজ্য নিয়ে।
আলাস্কা রাজ্যটি যুক্তরাষ্ট্র ক্রয় করে-রাশিয়ার কাছ থেকে ১৮৬৭ সালে ৭২ লাখ ডলার মূল্যে ।
১৮০৩ সালে যুক্তরাষ্ট্র লুইজিয়ানা রাজ্যটি কিনে নেয়-ফ্রান্স থেকে ।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন ক্রীতদাসদের স্বাধীন নাগরিকের মর্যাদা দান করেন ১৮৬৩ সালের ১ জানুয়ারি।
যুক্তরাষ্ট্রে ক্রীতদাস প্রথা বিলুপ্ত হয়-১৮৬৩ সালে।
মহিলারা ভোটাধিকার লাভ করে-১৯২০ সালে( সংবিধানের ১৯তম সংশোধনীর মাধ্যমে)।
বিশ্বের বৃহত্তম চলচ্চিত্র প্রেক্ষাগৃহ ‘রক্সি’ অবস্থিত- যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে।
ওয়াটার গেট- ওয়াশিংটনের একটি বাণিজ্যিক ভবন ( এখানে ডেমোক্র্যাট দলের রাজনৈতিক অফিস ছিল)।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে স্ট্যাচু অব লিবার্টি উপহার দেয়-ফ্রান্স।
হোয়াইট হাউজের স্থপতি-স্থপতি জেমস হোবান ( আয়ারল্যান্ড)।
বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার রাজনৈতিক দলের নাম- ডেমোক্র্যাট পার্টি (প্রতীক গাধা)। রিপাবলিকান পার্টির প্রতীক হাতি।
যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট- রানিংমেট হিসেবে পরিচিত।
বারাক ওবামা সিনেটর ছিলেন-ইলিয়ন রাজ্যের।
বারাক ওবামার বাবা বারাক ওবামা সিনিয়র –কেনীয় বংশোদ্ভুত।
মার্কিন প্রেসিডেন্টের সহধর্মিনীকে বলা হয়- ফার্স্ট লেডি। বর্তমান ফার্স্ট লেডি-মিশেল ওবামা ।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ ফার্স্ট লেডি- মিশেল ওবামা।
বর্তমান প্রতিরক্ষামন্ত্রী- আ্যসটন কার্টার।
সেক্রেটারি অব স্টেট বলা হয়- পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ।
বর্তমান ও ৬৮তম পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম-জন ফরবেস কেরি(তিনি ম্যাচাচুসেটসের সিনেটর ছিলেন )।
প্রতিরক্ষা বিভাগের সদর দপ্তর-পেন্টাগন(আরলিংটন, ভার্জিনিয়া)।
‘ফেয়ার ফ্যাক্স’ যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি অর্থনৈতিক গোয়েন্দা সংস্থা।
‘ব্ল্যাক ওয়াটার’ যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি নিরাপত্তা সংস্থা।
যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশযান উৎক্ষেপণকারী সংস্থা-নাসা।
নাসা প্রতিষ্ঠিত হয়-১৯৫৮ সালে।
নাসার সদর দপ্তর-ওয়াশিংটন ডিসি।
শান্তিতে নোবেল পুরস্কারপ্রাপ্ত মার্কিন প্রেসিডেন্টবৃন্দ
.
থিওডর রুজভেল্ট—১৯০৬ সাল
উড্রো উইলসন –১৯১৮ সাল
জিমি কার্টার—২০০২ সালে
বারাক ওবামা —২০০৯ সালে।
.
✎সংখ্যাভিত্তিক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য-
♦ মোট অঙ্গ রাজ্য-৫০টি
♦ প্রেসিডেন্টের মেয়াদকাল- চার বছর।
♦ পতাকায় তারকা ছিন্ন-৫০ টি; পতাকয় প্রথমে তারকা ছিল-১৩ টি।
♦ বারাক ওবামা ৪৪ তম প্রেসিডেন্ট
♦ প্রেসিডেন্ট হতে হলে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের প্রমাণ থাকতে হয়- ১৫ বছরের।
♦ প্রেসিডেন্ট হওয়ার সর্বনিম্ন বয়স-৩৫ বছর।
♦ মোট ইলেক্টোরাল ভোট -৫৩৮ টি।
♦ প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার জন্য ২৭০ টি ইলেক্টোরাল ভোট প্রয়োজন।
♦ সবচেয়ে বেশি ইলেক্টোরাল ভোট ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে ——৫৫টি।
মোট সিনেট সদস্য-১০০ জন।[ প্রতি রাজ্যে ২ জন করে, ৫০ টি রাজ্যে ১০০ জন] ♦ হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভের সদস্য- ৪৩৫ জন।
♦ প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবন ও প্রধান প্রশাসনিক দপ্তরের নাম- হোয়াইট হাউজ।
♦ প্রেসিডেন্টের অফিস যে নামে পরিচিত-ওভাল অফিস।
♦ প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমানের নাম- এয়ারফোর্স ওয়ান।
♦ ১ম প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াশিংটন হোয়াইট হাউজে বসবাস করেননি। হোয়াইট হাউজে বসবাস করেন ২য় প্রেসিডেন্ট জন এডামস।
♦ ১৬তম প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন ক্রীতদাস প্রথা বিলুপ্ত করেন।
♦ ১ম বিশ্বযুদ্ধের সময় প্রেসিডেন্ট ছিলেন উড্রো উইলসন(২৮তম) ।
♦ ২য় বিশ্বযুদ্ধের সময় প্রেসিডেন্ট ছিলেন রুজভেল্ট (৩২তম) ও হ্যারি এস ট্রুম্যান (৩৩ তম)
♦ ৩২তম প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্কলিন ডি রুজভেল্ট(১৯৩২-১৯৪৫) তিন মেয়াদে ক্ষমতায় ছিলেন ১২ বছর।
♦৩৫ তম প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি পুলিৎজার পুরস্কার লাভ করেন।
♦ ৩৭ তম প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সন ‘ওয়াটার গেট’ কেলেঙ্কারীর সাথে জড়িত।
♦রিচার্ড নিক্সন একমাত্র প্রেসিডেন্ট যিনি পদত্যাগ করেছিলেন।
♦ বসনিয়ায় যুদ্ধবিরতি স্বাক্ষরের মধ্যস্থতাকারী ৩৯ তম প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার।
♦ ৪০ তম প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যান হলিউডের অভিনেতা ছিলেন।
♦ প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট- বারাক ওবামা

[X]
Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *