Home / BCS Tips / How to take combined preparation for BCS and bank

How to take combined preparation for BCS and bank

How to take combined preparation for BCS and bank

প্রস্তুতির কলাকৌশলঃ
ব্যাংক, বিসিএস আলাদা নয়; একসাথে সবই হয়!
:
বিশ্লেষণেঃ সত্যজিৎ চক্রবর্ত্তী
[ Satyajit Chakraborty ] ____________________________________________________________________
ব্যাংক এবং বিসিএস এর প্রস্তুতি কিভাবে একসাথে নেওয়া যায়? বা দুটো প্রস্তুতি আদৌ একসাথে নেয়া যায় কি না! এ ধরনের প্রশ্নে ইনবক্স জমে গেছে বহু আগে থেকেই। অত্যন্ত বিনয়ের সাথে বলছি আমি সত্যজিৎ কোন ক্যারিয়ার কনসালটেন্ট নয়, বা এই বিষয়ে খুব অভিজ্ঞ কেউ নই। তবে বিভিন্ন ব্যাংকের ক্যাশ অফিসার, সিনিয়র অফিসার, বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক এবং এএসপি, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সহ বিভিন্ন বিসিএস ক্যাডার, সরকারি ক্ষেত্রে বিভিন্ন জায়গায় যারা চাকরির পরীক্ষা দিয়ে সফল হয়েছেন, তাদের সফলতা দেখেছি, তাদের মুখে শুনেছি কিভাবে ব্যাংক ও বিসিএস একসাথে পড়ে তারা সফল হয়েছেন। সবার অভিজ্ঞতার ঝুলি থেকে কৌশল নিয়ে নিজের ক্ষুদ্র জানা বিষয়গুলোর একটা সমন্বয় করেছি এই লেখায়।
:

 
প্রথমেই বিসিএস এবং ব্যাংকের বিগত বছরের প্রশ্ন এবং বর্তমান সিলেবাসটা হাতে নিন। একটু খেয়াল করে দেখবেন দুটো সিলেবাসই কিন্তু একই মানের। কিন্তু পরীক্ষার প্রশ্ন একই মানের হয়না। বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ জ্ঞান, বিজ্ঞান ও কম্পিউটার এবং গণিত ও মানসিক দক্ষতা -এই বিষয়গুলো বিসিএস এবং ব্যাংক দুটোর জন্যই পড়তে হয়। কিন্তু বিসিএস এর জন্য বাংলা ব্যাকরণ ও সাহিত্য অনেক বিস্তারিত পড়তে হয়, ব্যাংকের জন্য অতটা বিস্তারিত না হলেও খুব একটা ক্ষতি নেই। আবার গণিত ও ইংরেজিতে ব্যাংকের জন্য অনেক বিস্তারিত পড়তে হয় কিন্তু এক্ষেত্রে বিসিএস এর গণিতে ব্যাংকের মত চাপ নেই। অপরদিকে সাধারণ জ্ঞান, বিজ্ঞান ও কম্পিউটার ব্যাংক ও বিসিএস দুটো ক্ষেত্রেই একই রকম প্রস্তুতি প্রয়োজন।
:
তাহলে প্রস্তুতির ভিন্নতা শুধু গণিত, ইংরেজি বাংলায়। একটু আগেই বলেছি বিসিএস প্রিলির জন্য গণিত খুব বেশি চাপ সৃষ্টি করেনা কিন্তু ব্যাংকের জন্য অনেকটা চাপই সৃষ্টি করে এই গণিত বিষয়টা। অর্থাৎ ব্যাংকের প্রস্তুতির জন্য গণিত বিষয়ে একটু গভীরভাবে বিস্তারিত জানতে হয়, অনেক বেশি অনুশীলন করতে হয়। কাজেই আপনি যখন গণিত করবেন তখন ব্যাংকের বিষয়টা মাথায় রেখেই গণিত করবেন। অর্থাৎ বিস্তারিতভাবে বুঝে বুঝে শর্টকাট পদ্ধতি বাদ দিয়ে অংক করবেন। এতে গণিতে ব্যাংকের জন্য আপনার ভাল একটা প্রস্তুতি হয়ে যাবে। আর এত ভাল প্রস্তুতি নিতে পারলে বিসিএস এর সব গণিত আপনি এক নিমিষেই পারবেন, যেটা প্রিলিতে কোয়ালিফাই হওয়ার ক্ষেত্রে আপনাকে অনেকদুর এগিয়ে রাখবে।
:
শুধু তাই নয়, ব্যাংকের প্রস্তুতির জন্য আপনি যখন বিস্তারিত গণিত অনুশীলন করবেন, তখন বিসিএস লিখিত পরীক্ষার গণিতের পুরো কাজটাই হয়ে যাবে। অর্থাৎ বিসিএস প্রিলিতে কোয়ালিফাই হওয়ার পর যেখানে অনেকে লিখিত গণিত নিয়ে ভয় পাই, তখনই গণিত আপনার কাছে সহজ মনে হবে। কারণ আপনি ব্যাংকের প্রস্তুতির সময় গণিতের সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। একেই বলে একঢিলে বহুপাখি মারা।
:

 
এরপর ইংরেজিতে মোটামুটি ব্যাংক বিসিএস দুটোতেই কাছাকাছি প্রশ্ন হয়। তবে তুলনামুলক ব্যাংকে কিছুটা কঠিন হয়। এক্ষেত্রে গণিতের মতই ইংরেজিতে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি রাখবেন, বিশেষ করে শব্দভাণ্ডার বাড়াতে এবং অনুবাদের ক্ষেত্রে। এই জিনিসটা আপনাকে সবদিকেই অনেকের চেয়ে এগিয়ে রাখবে। এক্ষেত্রে আমার লেখা “সহজ ভাষায় ইংরেজি গ্রামার “, “ইংরেজিতে ভালো করার উপায় ও অনুবাদের কলাকৌশল : সত্যজিৎ চক্রবর্ত্তী ” নাম ও শিরোনামে লেখাটির সাহায্য নিতে পারেন। লেখাগুলো এই পেজেই আছে।
:
বাকি থাকল সাধারণ জ্ঞান ও বাংলা সাহিত্য। ব্যাংকে বাংলা ব্যাকরণ ও সাহিত্য নিয়ে অনেক বেশি প্রশ্ন হয়না, কিন্তু যেগুলো হয় সেগুলো মোটামুটি কিছুটা সময় সাপেক্ষে কঠিন হয়। এক্ষেত্রে আপনি বিসিএস এর জন্য যখন সাধারণ জ্ঞান ও বাংলা সাহিত্য ও ব্যাকরণের উপর প্রস্তুতি নিবেন তখন সেটা বিসিএস পরীক্ষায় তো কাজ দিবেই, সে সাথে ব্যাংক ও অন্যান্য নিয়োগ পরীক্ষার জন্য ও ফলপ্রসূ হবে।
:

 
এরপর বিজ্ঞান ও কম্পিউটারের প্রস্তুতি ব্যাংক ও বিসিএস এ একই রকম। যেকোন বই বিসিএস এর সিলেবাস মতে শেষ করতে পারলেই হল।

 
:
মোট কথা আপনি যখন প্রস্তুতি নিবেন তখন পুরোটা একটা প্যাকেজ মনে করবেন। ব্যাংক বা বিসিএস আলাদা দৃষ্টিতে দেখার দরকার নাই। তবে গণিত ও ইংরেজির প্রস্তুতি নিবেন ব্যাংকের মত, আর বাংলা ও সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতি নিবেন বিসিএস এর মত। বিজ্ঞান, কম্পিউটার ও মানসিক দক্ষতার প্রস্তুতি নিবেন সাধারণভাবে। কারণ এগুলো সবক্ষেত্রেই একইরকম।
:
আমার দৃঢ়বিশ্বাস এভাবে প্রস্তুতি নিলে যেকোন সরকারি চাকরির জন্য আপনি নিজেকে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে দাবি করতে পারবেন। চাকরিটি এখনই পেতে হবে এই মানসিকতা কিছুটা বর্জন করে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি আগে শেষ করা উচিৎ। চ্যালেঞ্জ হবে ভাল প্রস্তুতির, অতঃপর সেই প্রস্তুতিতে নিশ্চিত চাকরির।
:
সবার জন্য শুভকামনা!
_________________________________________________________________________________________________
‪#‎Written_by‬:
Satyajit Chakraborty
Ex-president,
Social Law Awareness Association.

[X]
Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *