Home / BCS Tips / most importatnt topics of bangladesh constitution

most importatnt topics of bangladesh constitution

The Constitution of Bangladesh is the supreme law of the People’s Republic of Bangladesh. It was adopted on November 4, 1972.  most importatnt topics of bangladesh constitution

 

বিষয়: সংবিধান এর কোন অনুচ্ছেদগুলো এবং কিভাবে পড়বেন?
……………………………………………………………..
বাংলাদেশ সংবিধান বিসিএস পরীক্ষার্থীদের জন্য অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায়। কারন সংবিধান থেকে প্রিলিমিনারি, লিখিত ও ভাইভাতে প্রশ্ন আসে। প্রিলিমিনারিতে তিনটি প্রশ্ন আসার কথা বলা হয়েছে। লিখিত ও ভাইভাতে কয়টি প্রশ্ন আসবে তা বলা কঠিন। ৩৪তম বিসিএসে লিখিত বাংলাদেশ বিষয়াবলীতে ৪০ নম্বর এসেছিল সংবিধান থেকে। তাই সংবিধান ভাল করে পড়তে হবে।

 
সংবিধানের তিনটি অংশ বা দিক থেকে প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। যথা-
ক) সংবিধান প্রনয়নের ইতিহাস
খ) গুরুত্বপূর্ণ অনুচ্ছেদ
গ) সংবিধান সংশোধনীসমূহ


প্রথমেই আপনাকে সংবিধান প্রনয়নের সাথে কারা জড়িত ছিল, খসড়া অবস্থা, উপস্থাপনের তারিখ, গৃহীত হওয়ার তারিখ, স্বাক্ষরকারীগন, অধ্যাদেশ জারি, কমিটি গঠনের প্রেক্ষাপট, কে স্বাক্ষর করল না, মহিলা ছিল কিনা, অঙ্গসজ্জা কে করল, কে হাতে লিখল, কোন দেশের সংবিধান অনুসরন করল ইত্যাদি সব জেনে নিতে হবে।

 


এবার আসেন অনুচ্ছেদ এ। মোট ১৫৩ টি অনুচ্ছেদ এবং ৭ টি তফসিল আছে। সব মনে রাখা কঠিন। আবার সব পরীক্ষায় আসেও না। আপনি তো সংবিধান বিশেষজ্ঞ হবেন না। আপাতত পরীক্ষার তরীটা পার করাই আপনার উদ্দেশ্য। সংবিধানের সবেচেয় গুরুত্বপূর্ন অংশ হলো সংবিধানের মূলনীতি, রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি ও মৌলিক অধিকার। এর পরের অংশগুলো বাছাই করে পড়তে হবে। ১৫৩ অনুচ্ছেদের মধ্যে নিচের অনুচ্ছেদগুলো ভাল করে পড়তে হবে। যথা- ২(ক), ৩, ৪, ৪(ক), ৫, ৬, ৯, ১০, ১১, ১২, ১৩, ১৪, ১৫, ১৬,১৭, ১৮, ১৮ (ক) ১৯, ২০, ২১, ২২, ২৩, ২৩(ক), ২৪, ২৫, ২৭, ২৮, ২৯, ৩০, ৩১, ৩২, ৩৩, ৩৪, ৩৫, ৩৬, ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১, ৪২, ৪৩, ৪৯, ৫২, ৫৫, ৫৭, ৫৯, ৬০, ৬৪, ৬৫, ৬৬, ৬৭, ৭০, ৭৬, ৭৭, ৮১, ৮৭, ৯১, ৯৩, ৯৪, ১০২, ১০৬, ১০৮, ১১৭, ১১৮, ১২১, ১২২, ১২৩, ১২৭, ১৩৭, ১৩৮, ১৩৯, ১৪০, ১৪১, ১৪১ (ক), ১৪১(খ), ১৪১(গ), ১৪২, ১৪৮, ১৫৩.

 


এই অনুচ্ছেদগুলো লিখিত ও ভাইভার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। এর চেয়ে কমানো হলে বিপদে পড়ে যাবেন। সাতটি তফসিলের মধ্যে তৃতীয়, পজ্ঞম, ষষ্ঠ ও সপ্তম তফসিল ভাল করে পড়বেন।
বাংলাদেশ সংবিধান এ পর্যন্ত ১৬ বার সংশোধিত হয়েছে। এটি পরিবর্তনযোগ্য। তাই খেয়াল রাখতে হবে। এই সংশোধনীর কিছু আবার বাতিল ঘোষনা করা হয়েছে। দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ, অষ্টম, দ্বাদশ, ত্রয়োদশ (বাতিল), চতুর্দশ, পজ্ঞদশ, ষোড়শ সংশোধনী ভাল করে পড়বেন। সালটা আর মূল বিষয়বস্তু মনে রাখবেন। তবেই হবে।
অনেকেই বলে, পড়ি কিন্তু মনে থাকে না। তাদের বলছি। অনুচ্ছেদ দিয়ে ফ্লাশ কার্ড বানিয়ে নিন। বাইরে যাওয়ার সময় নিয়ে যাবেন। আর একটা কথা, সংবিধান একদম সংবিধানের ভাষায় পড়তে হবে বা লিখতে হবে এমন কোন কথা নেই। চলিত ভাষায় আপনার মত করে লিখবেন বা বলবেন। কোন সমস্যা নেই। তবে মূলভাব যেন সঠিক থাকে।

 


সংবিধান পড়ার জন্য আপনি যে বই বা গাইড অনুসরন করতে পারেন। যারা একটু বেশি অলস তারা পড়বেন (ক) ছন্দে ছন্দে সংবিধান (মো: আসাদুজ্জামান)। আর যারা কম অলস মানে শরীর নাড়াচাড়া ভালোই করেন তারা পড়বেন (ক) আরিফ খানের লেখা বাংলাদেশ সংবিধান বইটা। আর কি হয়ে গেল। আসলে ভাল প্রস্তুতির জন্য বেশি বই লাগে না; লাগে বেশি পড়াশুনা। সেটা করার ইচ্ছা আছে তো আপনার? তবেই হয়ে গেছে। আরে হ্যা হয়ে গেছে। আর একটা কথা আপনি যদি ইংরেজীতে খুব বেশি ভাল না হন তবে ইংরেজীতে সংবিধান না পড়া বা লেখাই ভাল। হিতে বিপরীত হতে পারে। তাই সময় নষ্ট না করে পড়া শুরু করে দিন। সংবিধান মনে রাখার চেষ্টা করুন। একে উপেক্ষা করে ভাল করার কোন সুযোগ নেই। সবার জন্য শুভ কামনা রইল।
শাহ্ মো: সজীব
বিসিএস (প্রশাসন)
৩৪তম বিসিএস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *