Home / News / হিলারির প্রচারণার ভিডিওতে খালেদা জিয়া

হিলারির প্রচারণার ভিডিওতে খালেদা জিয়া

মার্কিন নির্বাচনের শেষ মুহূর্তে এসে পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা জোরদার করেছেন বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ফাস্ট লেডি মিশেল ওবামা। সম্প্রতি মিশেল ওবামা ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় হিলারি ক্লিনটনের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। সেই ভিডিও খুব ছোট একটি ফ্রেমে ধরা পড়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াও।

মিশেল ওবামার সেই ভিডিও বার্তাটি নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে পোস্ট করেছেন ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। এক মিনিট ৫৬ সেকেন্ডের ভিডিওতে এক সেকেন্ডের কম সময়ের জন্য খালেদা জিয়াকে দেখা যায় হিলারির সঙ্গে করমর্দন করতে। যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় ৩ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টায় হিলারি এটি পোস্ট করেন।

খালেদার সঙ্গে হিলারির করমর্দনের ছবিটি কবেকার সেটি ভিডিওতে দেওয়া নেই। তবে এটি হিলারির কোনো এক সময় বাংলাদেশ সফরে আসার পরের ছবি সেটা বোঝা যায়। এই ছবিতে দেখা যায়, খালেদা জিয়া হলুদ রঙ এর শাড়ি পড়ে আছেন। আর হিলারি নীল রঙ এর পশ্চিমা পোশাক পড়া। তাদের পাশে দাঁড়িয়ে ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলছেন একজন শার্ট পড়া লোক। তার পাশেই দাঁড়িয়ে আছেন আরও একজন। তাদের দুই জনই বাংলাদেশি-এটা বোঝা যায়।

ভিডিও বার্তার মিশেল বলেন, ‘আমি খুব শীঘ্রই হিলারি ক্লিনটনকে ভোট দেবো। সেই সঙ্গে আপনাদেরও অনুরোধ করবো জলদি জলদি হিলারিকে ভোট দিয়ে আসুন।’

ভিডিও বার্তায় হিলারির বর্ণময় জীবনের নানা মুহূর্ত তুলে ধরা হয়েছে। শুরুতেই বলা হয়েছে, ভোটের মাধ্যমে আমরা আমাদের সন্তানের ভবিষ্যত গঠনের সিদ্ধান্ত নিতে পারি। এজন্য প্রয়োজন নিজেদের মূল্যবোধ এবং উপযুক্ত নেতৃত্ব বাছাই। এরপর মিশেল ওবামা হিলারির প্রতি ভোটের আবেদন জানান। এর স্বপক্ষে বিভিন্ন যুক্তিও তুলে ধরেন। স্কুল, কলেজ এবং কর্মসংস্থানের উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দেয়া হয় ভিডিওতে। সেই সঙ্গে বলা হয়েছে, প্রথম মার্কিন নারী প্রেসিডেন্ট হিসেবে হিলারিকে নির্বাচিত করতে চাই। সবশেষে সিদ্ধান্ত নিয়ে দ্রুত ভোটারদের কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, মার্কিন নির্বাচনের প্রচারণার পদ্ধতি ভারতীয় উপমহাদেশের চেয়ে খানিকটা ভিন্ন। সেখানে আমাদের মতো রাস্তায় পোস্টার, ফেস্টুন দেখা যায় না। বরং প্রার্থীরা ভোট চায় একেবারে ভোটারের অন্দরমহলে গিয়ে। অর্থাৎ তারা টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দেন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভিডিও পোস্ট করেন।

ঢাকাটাইমস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *