Home / News / গুলিস্তানে অস্ত্রের মহড়া

গুলিস্তানে অস্ত্রের মহড়া

রাজধানীর গুলিস্তানে হকারদের সঙ্গে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) কর্মচারীদের ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল দুপুরে পাতাল মার্কেটের সামনে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় এ ঘটনা ঘটে। উচ্ছেদের বিরুদ্ধে অস্ত্রের মহড়াও দেওয়া হয়। অভিযানের শুরুতেই হকারদের বাধার মুখে পড়েন ডিএসসিসি কর্মীরা। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ অবস্থায় বেশ কয়েকজনকে অস্ত্র উঁচিয়ে গুলি করতে দেখা গেছে।

জানা গেছে, পুলিশ তত্পর হলে আধা ঘণ্টার মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে এবং উচ্ছেদ অভিযান পুনরায় শুরু হয়। উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সময় ওই এলাকার সব সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকায় মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়ে। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, গুলিস্তানে ডিএসসিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মার্কেটে উচ্ছেদ অভিযান চালাতে যান। এ সময় পাতাল মার্কেটের সভাপতি আনু হাজীকে আটক করে ডিএসসিসি কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে হকারদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। হকাররা জড়ো হয়ে তাকে ছাড়িয়ে আনতে নগর ভবন ঘেরাও করেন।

পরে নগর ভবনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষ বাধে। উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। নিক্ষেপ করা হয় ইট-পাটকেল। অনেকে অস্ত্র উঁচিয়ে গুলি চালান। কেউ কেউ প্রকাশ্যে অস্ত্র উঁচিয়ে মহড়া দেন। আধা ঘণ্টা ধরে চলা এ সংঘর্ষে ডিএসসিসির পরিচ্ছন্নতা কর্মী সোহাগ, হকার মুরাদসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। সোহাগ ও মুরাদকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ডিএসসিসি সূত্র বলছে, গুলিস্তান আন্ডারপাস (দক্ষিণ পাশের) ফুটপাথে অবৈধভাবে নির্মিত দোকানপাট, সুন্দরবন মার্কেটের চারপাশে গড়ে ওঠা দোকানপাট গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া ফুলবাড়িয়ায় বিআরটিসি বাসস্ট্যান্ডের আশপাশের ফুটপাথজুড়ে গড়ে ওঠা টং দোকানসহ অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়েছে। পুলিশের মতিঝিল বিভাগের এডিসি মোহাম্মদ তারেক বিন রশিদ বলেন, ডিএসসিসি উচ্ছেদ অভিযান চালাতে গিয়ে হকারদের বাধার মুখে পড়ে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে উত্তেজনা ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি। গুলিস্তানে উচ্ছেদ অভিযান শেষে বিকালে নগর ভবনে জরুরি সংবাদ সম্মেলন করেন ডিএসসিসির মেয়র সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, শহরের ফুটপাথ দখলমুক্ত রাখতে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা রয়েছে।

তার আলোকে চলমান উচ্ছেদের অংশ হিসেবে গুলিস্তানে অভিযান চালায় ডিএসসিসি। তিনি বলেন, উচ্ছেদ অভিযানে হকারদের একটি অংশ বাধা দিয়েছিল। কিন্তু বাধা উপেক্ষা করে গুলিস্তানের সব অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়েছে। পাশাপাশি বাধা দেওয়া প্রত্যেক হকারকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরবর্তীতে ডিএসসিসির উচ্ছেদ কার্যক্রমে কেউ বাধা দিলে তাদের কঠোরভাবে দমন করা হবে। তিনি ফুটপাথ দখলমুক্ত রাখতে ঢাকা মহানগর পুলিশকে (ডিএমপি) আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *