Home / Govt Jobs / আজ ফের বিক্ষোভ করবে শিক্ষক নিবন্ধন প্রার্থীরা

আজ ফের বিক্ষোভ করবে শিক্ষক নিবন্ধন প্রার্থীরা

১৩তম পরীক্ষায় ফেল করা শত শত বিক্ষুব্ধ শিক্ষক নিবন্ধন প্রার্থীরা ফলাফল পূণর্মূল্যায়ণের দাবীতে নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে স্মারকলিপি দিয়েছেন। আজ বুধবার দুপুরে তারা রাজধানীর নায়েম ক্যাম্পাসে অবস্থিত নিবন্ধন অফিসে গিয়ে স্মারকলিপি জমা দেন।

 

কাল বৃহস্পতিবার ফের বিক্ষোভ করবেন বলে ফেরদৌস আহমেদ নামের একজন বিক্ষোভকারী জানান। বিক্ষোভাকারীদের দাবী ৮০ নম্বর পেলেও তাদেরকে ফেল দেখানো হয়েছে।

 

গতকাল মঙ্গলবার লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়।

 

সকালে রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকার নায়েম ক্যাম্পাসে অবস্থিত

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের অফিসে শত শত প্রার্থী ভীড় জমান। তারা ফল নিয়ে বিক্ষোভ করেন। খাতা দেখতে চান। ৮০ নম্বর পেয়েও কেন ফেল তা জানতে চান। এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলেন কর্তৃপক্ষের একজন সদস্য। সেখানে উপস্থিত ছিলেন কয়েকজন সাংবাদিকও।

 

পরিস্থিতি সামাল দিতে নিউ মার্কেট থানা থেকে পুলিশ ডেকেছেন কর্তৃপক্ষ।

 

ক্ষুব্ধ প্রার্থী রফিকুল ইসলাম জানান, প্রতিপদের বিপরীতে দুই থেকে তিনজনকে মৌখিক পরীক্ষায় ডাকা হবে এমন হিসেবে লিখিত পরীক্ষায় পাস করানো হয়েছে বলে জানা যায়।শূন্য পদের বেশি পাস করানো হয়নি বলেও শুনেছি।

 

তবে, কর্তৃপক্ষ বলছেন, নিয়োগ পরীক্ষায় কত নম্বরে পাস আর কত নম্বরে ফেল তা নির্ধারণ করার এখতিয়ার কর্তৃপক্ষের।

 

গত ১২ ও ১৩ আগস্ট ত্রয়োদশ শিক্ষক নিবন্ধন এর লিখিত পরীক্ষায় স্কুল এবং কলেজ পর্যায়ে ১ লাখ ২৭হাজার ৬৬৪জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। এর মধ্যে স্কুল-২ পর্যায় এ ৪৬১জন, স্কুল পর্যায়ে ১৩ হাজার ৮৬৮জন এবং কলেজ পর্যায়ে ৪ হাজার ৬৪৪জনসহ সর্বমোট ১৮ হাজার ৯৭৩জন প্রার্থী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন।

 

ত্রয়োদশ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় স্কুল পর্যায়ে ২৩টি, স্কুল পর্যায়-২ এ ১৯টি এবং কলেজ পর্যায়ে ৩৫টি সহ সর্বমোট ৭৭টি বিষয়ে লিখিত পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়।

 

নিয়োগে দুর্নীতি বন্ধের লক্ষে সরকার এন্ট্রি লেভেলে শিক্ষক নিয়োগের জন্য প্রার্থী বা্ছাইয়ের ক্ষমতা নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের হাতে দিয়েছে গত বছর।

 

কর্তৃপক্ষ দাবী করছেন ফলাফল সঠিকভাবেই তৈরি ও প্রকাশ করা হয়েছে। কোনো অন্যায় করা হয়নি। নিয়োগ পরীক্ষায় কতজনকে পাস করানো হবে তা কর্তৃপক্ষের এখতিয়ার। তারা বলছেন, শুধু পাস করালেই তো হবে না, শূন্য পদও তো থাকতে হবে। তাই শূন্য পদ ও মৌখিক পরীক্ষায় বাছাই ইত্যাদি হিসেব কষেই ফল প্রকাশ করা হয়েছে। সূত্রঃ দৈনিক শিক্ষা

[X]
Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *